ঘরোয়া পদ্ধতিতে গ্যাস বা অম্বল দূর করার উপায়

গ্যাস অম্বল এর সমস্যা হয়নি বর্তমানে খুব কম মানুষ রয়েছে। দৈনন্দিন জীবনের নানান রকম ফাস্টফুড, তৈলাক্ত খাবার খাওয়া, জল কম খাওয়া এবং অনেকক্ষণ ধরে একটানা না খেয়ে থাকলেও গ্যাস অম্বলের সমস্যা দেখা দেয়। গ্যাস বা অম্বল এর কারনে কখনো কখনো বমি পেটে ব্যথা মাথা ব্যথা ও দম আটকে আসে, অম্বলে সমস্যা ঘরোয়া পদ্ধতিতে দূর করা যায়।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে অম্বল বা গ্যাস দূর করার উপায় 

অম্বল দূর করার জন্য আপনাকে কয়েকটি ঘরোয়া ব্যবস্থা করে নিতে হবে,

১. অম্বল বা গ্যাসের সমস্যা হলে সারাদিন দুইটা থেকে তিনটা কলা খাওয়া খুবই উপকারী। কলার মধ্যে ভিটামিন ও নানারকম প্রোটিন থাকায় কলা পেট পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে।

২. দুধ ভালো মতো ফুটে ঠান্ডা করে খেলে গ্যাস অম্বল ও শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী একটি খাবার হল দুধ। দুধ পাকস্থলীর গ্যাস্ট্রিক এসিডকে নিয়ন্ত্রণ করে এবং গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য। গ্যাস্ট্রিক হলে দিনে অন্তত পক্ষে এক গ্লাস করে দুধ খাওয়া খুবই উপকারী।

৩. দারচিনি শরীরের হজমশক্তি বাড়ায়। দারচিনির গুঁড়ো করে এক গ্লাস জলে আধা চামচ দারচিনি মিশিয়ে গরম করে দিনে তিনবার করে খেলে গ্যাস অম্বল থেকে দূরে থাকতে পারবে।

৪. রাতে এক গ্লাস জলে এক চামচ মৌরি ভিজিয়ে রেখে, সকালে সেই মৌরি জল খেলে গ্যাস-অম্বল থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

৫. গ্যাস ও অম্বলে আক্রান্ত হলে দুই থেকে তিনটি লবঙ্গ মুখে রেখে চাবাতে থাকলে গ্যাস অম্বল থেকে দূরে থাকতে পারবেন। লবঙ্গের রস গ্যাস্টিকের হওয়া বমি, বুকে জ্বালা, মাথাব্যথা ও গ্যাস দূর করতে সাহায্য করে।

৬. এক কাপ জলে পাঁচ-ছয়টা পুদিনা পাতা দিয়ে জলটা গরম করে খেতে হবে।

৭. দিনে কয়েকবার এলাচ গুঁড়ো করে খেলে খুবই উপকার হয়।

৮. আমলক্ষী বা আমলা দু তিন টুকরো করে কেটে রোদে শুকোতে দিয়েছে সেগুলো শুকানোর পরে যতবার ইচ্ছে খেতে পারেন, আমরা শরীরের বদহজম দূর করতে সাহায্য করে ও গ্যাস দূর করতে সাহায্য করে। তবে মনে রাখবেন দিনে ১২-১৫টুকরোর বেশি আমলা না খাওয়াই ভালো।

৯. অম্বল সমস্যা দূর করতে আদা খুবই উপকারী আদা হেতো করে খেলে গ্যাস অম্বল এর সমস্যা দূর হয়।

১০. টক দইয়ে থাকা ক্যালসিয়াম, পাকস্থলীতে অ্যাসিড জমা করতে বাধা দেয় এর ফলে অম্বর ও গ্যাসের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এক গ্লাস টক দই এর সাথে আধা চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো মিশিয়ে খেলে খুব তাড়াতাড়ি গ্যাসের সমস্যা থেকে দূর হতে পারবেন।

১১. গ্যাস বা অম্বল হলে অতিরিক্ত পরিমাণে ফাস্টফুড, তেল যুক্ত খাবার ও ফ্যাট যুক্ত খাবার থেকে একেবারে দূরে থাকতে হবে।

Bangladesh Sangbad/Vj Koushik