ঘরোয়া পদ্ধতিতে রক্ত বিশুদ্ধ করার উপায় / Ways to purify the Blood

মুখে খুব ব্রণ হচ্ছে ? এবং বারবার ফিরে আসছে এই সমস্যা ? বা বিভিন্ন চর্মরোগে প্রায়ই নাজেহাল হয়ে যান ? যার একটা কারণ হল দূষিত রক্ত। পরিশুদ্ধ রক্তের অভাবে এ ধরনের নানা সমস্যা দেখা যায়। কারণ রক্ত শরীরের প্রতিটি দিকে পৌঁছে দেয় অক্সিজেন ও যাবতীয় পুষ্টি দ্রব্য। আর এই রক্তে যদি দূষিত হয়ে যায়, তাহলে শরীরের ভিতরে নানা সমস্যা তৈরি হয়। শরীরের ভেতরের যাবতীয় প্রক্রিয়া গুলি নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাই রক্তকে পরিষ্কার রাখা খুব জরুরী। এর জন্য কিন্তু ঘনঘন ডাক্তারের কাছে যাওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। বাড়িতে থেকে খুব সহজে করা সম্ভব। দেখে নিন-

রক্ত পরিষ্কার করার কার্যাবলী/Blood cleansing functions

লেবু:-শরীরে ক্ষতিকারক টক্সিন জমে থাকার ফলে রক্ত দূষিত হয়। আরে টক্সিন দূর করতে লেবু দারুন সাহায্য করে। লেবুতে  রয়েছে এমন কিছু উপাদান যা শরীর থেকে টক্সিন দূর করতে সাহায্য। টক্সিন যত দূর করা যাবে রক্ত রক্ত পরিশুদ্ধ হবে। এর জন্য লেবু জল খান নিয়মিত।

আপেল:-প্রতিদিন সুস্থ থাকার জন্য আপেল খুব উপকারী ফল তা আমরা কমবেশি সকলেই জানি। আপেলে থাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ফাইবার এবং বিভিন্ন রকমের পুষ্টিগুণ। যা লিভার থেকে টক্সিন বের করতে খুবই উপকারী। এটি কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে, যার ফলে রক্ত পরিষ্কার থাকে এবং হার্ট ভালো থাকে।

বিট:-বিএড প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। যা রক্তাল্পতার মত সমস্যা ঠিক করার পাশাপাশি, রক্তকে পরিষ্কার রাখতেও সাহায্য করে। শরীরকে রোগ জীবাণু থেকে মুক্ত রাখতে সাহায্য করে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। তাই রান্নাতে বেশি পরিমাণে বিট খান বা সপ্তাহে দুদিন বিটের রস পান করুন।

রসুন:-রক্ত পরিষ্কার রাখতে প্রতিদিন একটা করে ওষুধ খান। কারণ রসুনে থাকে এন্টি- ক্যান্সার উপাদান। যা রক্ত থেকে ক্ষতিকর ভাইরাস দূর করতে সাহায্য করে। এবং এন্টি অক্সিডেন্ট উপাদান ক্ষতিকর দিক থেকে শরীরকে বাঁচায়। শরীরকে তথা রক্তকে পরিষ্কার রাখো।

হলুদ :- হলুদকে বলা হয় লিভারের ওষুধ। কিন্তু শুধুমাত্র লিভার নয়, রক্তকে পরিষ্কার রাখতে এর ভূমিকা অতুলনীয়। হলুদ এন্টিসেপটিক হিসেবে কাজ করে। এর কারকিউমিন নামক উপাদান লিভার সুস্থ রাখার একটি অন্যতম উপাদান। এবং রক্তকে পরিষ্কার রাখে ,তাই রান্নায় ব্যবহার করুন কাঁচা হলুদ। বা প্রতিদিন কাঁচা হলুদ চিবিয়ে খান।

করলা:- আপনারা ও নিশ্চয়ই ছোটবেলা থেকেই শুনেছেন বাড়ির বড়দের থেকে বেশি করে তেতো খেলে রক্ত পরিষ্কার হয়। এটি কিন্তু সত্যি রক্তকে পরিষ্কার রাখার জন্য করলার থেকে উপকারী উপাদান আর কিছু হয় না। করলায় আছে ডিটক্স ফাইন উপাদান। রক্ত থেকে টক্সিন এবং অন্যান্য ক্ষতিকারক উপাদান বের করে দেয়। এর জন্য সপ্তাহে তিনদিন করলা সেদ্ধ খান শরীর সুস্থ থাকবে।

গাজর:-রক্তকে পরিষ্কার রাখতে গাজরের কোন তুলনাই নাই। গাজরের রয়েছে এমন কিছু উপাদান যা রক্তকে পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। এছাড়া গাজরে রয়েছে ভিটামিন এ, সি,  কে ও প্রচুর পটাশিয়াম যা রক্তকে পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। তাই নিজের রক্ত পরিষ্কার রাখতে চাইলে বেশি করে গাজর খান। কাচা  চিবিয়ে খেতে পারলে আরো ভালো।

ব্রকলি:- রক্ত পরিষ্কার রাখার কাজে ব্রকলি ও খুব উপকারী একটি সবজি। এটি রক্তকে ডিটক্সিফাই করে। রক্ত থেকে সমগ্র ক্ষতিকারক উপাদান টেনে বের করতে সাহায্য করে। তাই যদি বেশি করে ব্রকলি খাওয়া যায় তবে রক্ত দূষিত হবার কোন সম্ভাবনা থাকবে না।

তাহলে বাড়িতে বসে জেনে নিলেন কত সহজে রক্ত পরিষ্কার রাখা যায়। তাহলে আজ থেকে শুরু করে দিন রক্ত পরিষ্কার রাখার প্রস্তুতি। কারণ রক্ত দূষিত হলে পুরো শরীরটাই ভেঙে পড়বে। তাই সাবধানে থাকুন।