নিম পাতার ক্ষতিকারক দিক/Side effect of Neem leaves

নিম পাতার কিছু ক্ষতিকর দিক রয়েছে। নিমপাতার ব্যবহার বেশি হলে নিমপাতা কিছু মারাত্মক ক্ষতিকারক প্রভাব রয়েছে। আমরা আগেই নিমপাতার গুণাবলী সম্পর্কে কথা বলেছি। আজ জেনে নেওয়া যাক নিমপাতার ক্ষতিকারক দিক গুলো কি।
  1. নিম পাতার কিছু ক্ষতিকারক দিক/Some harmful aspects of neem leaves

১. প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের জন্য নিমপাতার ব্যবহার কম হলেই ভালো। টানা এক মাস নিমপাতা ব্যাবহার করলে তাদের কিডনি ও লিভারের সমস্যা দেখা দেবে। তাই নিমপাতা ব্যাবহার করলে কিছুদিন পর পর ব্যবহার করা উচিত।

২. শিশুদের নিম এর তেল বা নিমের বীজ গ্রহণ করলে এক ঘন্টা মধ্যেই বমি, ডায়রিয়া, জন্ডিস, হূদরোগ, জ্ঞান হারিয়ে ফেলা, কোমা ও মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। তাই শিশুদের নিমের তেল ও নিমের বিজ ভুল করে খাওয়াবেন না।

৩. গর্ভবতী মহিলাদের ও শিশু যতদিন মায়ের দুধ খায় ততদিন নিম পাতা খেলে/নিম খেলে তা মা ও শিশুর দুজনেরই ক্ষতি করবে। তাই গর্ভবতী মহিলাদের ও দুগ্ধ পান করা শিশুর মায়েদের নিম পাতা খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

৪. খালি পেটে দুই থেকে তিনটি বেশি নিমপাতা না খাওয়াই ভালো এতে পেটের অনেক ক্ষতি করে এবং লিভার ও যকৃতের ক্ষতি করে।

৫. অতিরিক্ত নিম খেলে সুগারের মাত্রা কমে যেতে পারে তাই যাদের সুগার কম আছে। সুগার বৃদ্ধি করার ওষুধ খান, তাদের নিম না খাওয়াই উপকার। সুগার মেপে পাতা খাওয়া দরকার।

৬. ছোট বাচ্চাদের সাত দিনের বেশি নিম না খাওয়াই ভালো। এতে বাচ্চাটার রোগা, খিটখিটে মেজাজের ও যকৃতের ক্ষতি হতে পারে।

৭. অঙ্গ প্রতিস্থাপন ও যে কোনো অপারেশনের দুই থেকে তিন সপ্তাহ আগে থেকেই নিম পাতা খেলে তাও খাওয়া বন্ধ করে দিতে হবে। এতে আপনার সাথে একমত শরীরের ক্ষতি করবে।

৮. আপনার যদি অটোইমিউন থাকে তবে সে ক্ষেত্রে নিম খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। এটা আপনার শরীরের ক্ষতি হতে পারে।

এগুলো হল নিমপাতার ক্ষতিকারক দিকগুলো, নিমপাতা অতিরিক্ত পরিমাণে একদমে খাবেন না।