পেয়ারা ফলের উপকারিতা ও উপস্থিত উপাদান/Benefits and Present ingredients of Guava Fruit

পেয়ারা ফল শুধু স্বাদ বেশী থাকার জন্য ও ফল হিসেবেই ব্যবহার হয় না, পেয়ারা ফলের মধ্যে রয়েছে অনেকরকম রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। জেনে নেওয়া যাক পেয়ারা ফলের উপকারিতা ও উপস্থিত পুষ্টি

পেয়ারা ফলে উপস্থিত পুষ্টি গুলো হল/ Ingredients of Guava Fruit

পেয়ারা ফলে ভিটামিন এ (A) ভিটামিন বি (B) ভিটামিন সি (C) ইত্যাদি প্রচুর পরিমাণে রয়েছে। পেয়ারা ফলের রয়েছে প্রচুর পরিমাণে বিটা ক্যারোটিন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, ফলিক অ্যাসিড, নাইট্রিক অ্যাসিড ইত্যাদি।

এছাড়াও রয়েছে শর্করা, চিনি, খাদ্যে ফাইবার, স্নেহপদার্থ, লোহা,ম্যাঙ্গানিজ সহ বিভিন্ন ধাতুসমূহ।

পেয়ারার ফলে থাকা বিভিন্ন উপাদান আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী।

পেয়ারা ফলের উপকারিতা/Benefits of Guava Fruit

১. ডায়াবেটিস রোগীদের নিয়মিত পেয়ারা খাওয়া দরকার। নিয়মিত পেয়ারা খেলে ডায়াবেটিস থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। কারণ পেয়ারা আশ চিনি শোষন কমায়।

২. পেয়ারা শরীরের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে খুব উপকারী। যাদের রাতকানা সমস্যা আছে ও চোখের সমস্যা যাদের রয়েছে তাদের প্রতিদিন পেয়ারা খেলে চোখের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবে।

৩. ডায়রিয়া রোগীদের জন্য পেয়ারা খুবই উপকারী একটি ফলখাদ্য। পেয়ারা ডায়রিয়া সারাতে সক্ষম। ডায়রিয়া রোগের যত পেয়ারা খাবেন তত উপকার পাবেন।

৪. ক্যান্সার প্রতিরোধে পেয়ারা কাজ করে। ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হওয়া ব্যক্তিদের দৈনন্দিন জীবনের প্রতিদিন পেয়ারা খাওয়া উচিত। প্রোস্টেট ক্যানসার ও স্তন ক্যান্সারের জন্য পেয়ারা খুবই উপকারী একটি খাবার।

৫. আজমা,স্কার্ভি, স্থূলতা ক্যানসার ইত্যাদি অনেক রোগ প্রতিরোধের জন্য পেয়ারা খাওয়া দরকার।

৬. পেয়ারা আমাশা, কোষ্ঠকাঠিন্য, গ্যাসটক সহ পেটে বিভিন্ন সমস্যা দূর করতে পেয়ারা খুবই উপকারী।

৭. বয়সের সঙ্গে জড়িত নানা রোগ যেমন, চোখে ছানি পরা, স্মৃতিভ্রংশ, হাঁটু ব্যথা অনেক সমস্যা থেকে পেয়ারা মুক্তি দেয়।

৮. পেয়ারা শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। এবং পেয়ারা ফলের রস শরীরে বিভিন্ন রকম ভিটামিন যোগান দেয়।

৯. উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে পেয়ারা খুবই উপকারী।